শিরোনামঃ

» অবশেষে সিল করা হয়েছে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা যশোর মাদকাসক্তি নিরাময় ও পুনর্বাসন কেন্দ্র

প্রকাশিত: ২৮. মে. ২০২১ | শুক্রবার

বিশেষ প্রতিনিধি।। অবশেষে সিল করা হয়েছে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা যশোর মাদকাসক্তি নিরাময় ও পুনর্বাসন কেন্দ্র।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই কেন্দ্রে থাকা রোগীদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে সিল করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর যশোরের উপপরিচালক মোহাম্মদ বাহাউদ্দিন।
এদিকে, একইদিন এস এম হাসিবুর রহমান ও মুজাহিদুল ইসলাম নামে দু’রোগী আদালতে সাক্ষী হিসেবে জবানবন্দি দিয়েছেন।
অন্যদিকে, বৃহস্পতিবার দু’ পরিচালকসহ আটক ১১ আসামির রিমান্ড শুনানির নির্ধারিত দিন ছিল। তদন্ত কর্মকর্তা অসুস্থ থাকায় আদালতে হাজির হতে পারেননি। ফলে, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুদ্দীন হোসাইন আগামী রোববার শুনানির পরবর্তী দিন ধার্য করেন।
যশোর মাদকাসক্তি নিরাময় ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের আরও অনিয়মের ফিরিস্তি জানা গেছে। প্রথমে ঘটনার সাথে জড়িত ১২ জন রোগীকে আটক করে। পরে পুলিশ হেফাজতে নেয় ১৬ জন রোগীকে। যাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
এ দিয়ে মোট রোগীর সংখ্যা ২৮ জন। অথচ তারা আবেদন করেছিল ১০ জন রোগীকে সেবা দিবে বলে। ১০ জনের অনুমোদন চেয়ে  ২৮ জন রোগী রাখে তারা। শহরের মধ্যে কিভাবে অবৈধ এ কেন্দ্র বাণিজ্য চালিয়েছে তা নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের ভূমিকা রহস্যজনক বলে মনে করছেন অনেকেই।
উল্লেখ্য, গত ২২ মে ওই কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন কিশোর মাহফুজুর রহমানকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।
এ ঘটনায় নিহতের পিতা মনিরুজ্জামান দু’জন পরিচালকসহ ১৪ জনকে আসামি করে কোতোয়ালি থানায় হত্যা মামলা করেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৮৮ বার

[hupso]