শিরোনামঃ

» আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে ব্যবসায়ীদের সমস্যায় পড়তে হয় না– প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১০. জুন. ২০২১ | বৃহস্পতিবার

বেত্রাবতী ডেস্ক।।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশ যেন সম্মানের সাথে মাথা উঁচু করে চলতে পারে সে লক্ষ্যে এ দেশকে একটি ক্ষুধা ও দরিদ্রমুক্ত দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে সরকার তৃণমূল মানুষের অর্থনৈতিক সক্ষমতা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছে।

যদি আমরা একটি দরিদ্রমুক্ত দেশ গড়তে চাই, তবে আমাদের সাধারণ মানুষের অর্থনৈতিক সক্ষমতা নিশ্চিত করতে হবে। আমরা যদি দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যে বাড়ানোর পাশাপাশি শিল্পায়নের দ্রুত বিস্তার ঘটাতে চাই, তবে আমাদের নিজস্ব বাজার সৃষ্টি করতে হবে। আর এ জন্যই সাধারণ মানুষের ক্রয়-ক্ষমতা বাড়ানো জরুরি।

আজ বৃহস্পতিবার গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি ‘বেসরকারি তহবিলের মাধ্যমে বাড়ি নির্মাণ’ ও ‘করোনাভাইরাস সহায়তা তহবিল’ এর জন্য অনুদান গ্রহণকালে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে তার পক্ষ থেকে তার মুখ্য সচিব বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংগঠন ও ব্যক্তিদের কাছ থেকে এই অনুদানের চেক গ্রহণ করেন।

শেখ হাসিনা আরো বলেন, তার দলের প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে- তৃণমূল জনসাধারণকে অর্থনৈতিক সক্ষমতায় নিয়ে এসে তাদেরকে দারিদ্রের অভিশাপ থেকে মুক্তি দেওয়া এবং এভাবে তাদের ক্রয় ক্ষমতা বাড়ানো।

তিনি বলেন, প্রত্যেক গৃহহীন ও ভূমিহীন মানুষকে আশ্রয় দেওয়া এবং করোনাভাইরাসের অভিঘাত থেকে দেশের মানুষকে রক্ষা করার লক্ষ্যে তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্ট থেকে ৫ কোটি টাকা প্রদান করে এই তহবিল শুরু করেছেন।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, করোনভাইরাস মহামারি দেশের অর্থনীতিকে ব্যহত করেছে। আমাদেরকে এই বৈশ্বিক মহামারির অভিঘাত থেকে দেশ ও দেশের মানুষকে রক্ষা করতে হবে এবং আমরা এ লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি।

এ দেশের মানুষকে একটি উন্নত দেশ উপহার দেওয়ার স্বপ্ন নিয়ে জাতির পিতা আমাদের দেশকে স্বাধীন করেছিলেন- যাতে এ দেশের জনগণের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, চিকিৎসা ও শিক্ষা নিশ্চিত হয় উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সমৃদ্ধ ও উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্য নিয়ে অক্লান্তভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

দায়িত্ব গ্রহণের পর আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বাংলাদেশকে একটি উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করেছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা আরো বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে স্বপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে এ দেশ তার সম্মান হারিয়ে ফেলেছিল এবং এই হত্যাকাণ্ডের পর পূর্ববর্তী সরকারগুলো দেশের গৌরব ও সম্মান পুনরুদ্ধারে কিছুই করেনি।

তিনি বলেন, আজকের বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ। আমাদেরকে একটি উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে টিকে থাকতে হবে। আর এ লক্ষ্যে আমাদেরকে বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আত্মমর্যাদার সাথে আরো সামনে এগিয়ে যেতে হবে। পাশাপাশি, একটি বিজয়ী জাতি হিসেবে বিশ্বের দরবারে আমাদের মাথা উঁচু করে চলতে হবে।

ব্যবসায়ীরা দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারে উল্লেখ করে তিনি আওয়ামী লীগ সরকার যতদিন পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকবে, ততদিন পর্যন্ত ব্যবসায়ীদের কোনো ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না বলে ব্যবসায়ী সম্প্রদায়কে আশ্বস্ত করেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী বিভিন্ন সরকারি, বেসরকারি সংস্থা এবং ব্যক্তিবর্গ এর আগে ‘বেসরকারি অর্থে গৃহ নির্মাণ তহবিলে’ ২৬৩ কোটি টাকা এবং “করোনাভাইরাস সহায়তা তহবিলে” ১১০ কোটি টাকা অবদান রেখেছে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৫৬ বার

[hupso]