শিরোনামঃ

» ঝিকরগাছায় গৃহবধূকে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত: ০৪. নভেম্বর. ২০২০ | বুধবার

ঝিকরগাছা প্রতিনিধি।। ঝিকরগাছা উপজেলায় পুতুল দাস (১৬) নামে এক গৃহবধূকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আজ বুধবার ঢাকায় নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ঝিকরগাছা উপজেলার কাউনিয়া দাসপাড়ার বাড়িতে ওই গৃহবধূ অগ্নিদগ্ধ হন।

মারা যাওয়া পুতুল দাস ঝিকরগাছা উপজেলার কাউনিয়া দাসপাড়ার প্রদীপের স্ত্রী।

পুতুলের বাবার বাড়ির সদস্যদের অভিযোগ, পুতুল কে পুড়িয়ে হত্যা করেছেন প্রদীপ। তবে প্রদীপ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

তিনি দাবি করেন, গতকাল রাতে স্ত্রী পুতুলের সঙ্গে তাঁর ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে পুতুল কেরোসিন ঢেলে শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। তাঁকে রক্ষা করতে গিয়ে তিনিও দগ্ধ হন।

স্বজন ও প্রতিবেশীরা জানান, মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে প্রদীপ ও তাঁর স্ত্রী পুতুলের ঝগড়া শুরু হয়। গভীর রাতে তাঁদের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা বাইরে এসে ঘরের মধ্যে আগুন জ্বলতে দেখেন।

এ সময় তাঁরা তাঁদের উদ্ধার করে ঝিকরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

খবর পেয়ে পুলিশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁদের যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় পুতুলকে আজ ঢাকায় পাঠানো হচ্ছিল। কিন্তু ঢাকায় নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক আহম্মেদ তারেক শামস চৌধুরী বলেন, ভোররাতে অগ্নিদগ্ধ দম্পতিকে হাসপাতালে আনা হয়। পুতুলের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে ঢাকায় পাঠানো হয়। প্রদীপের দুই হাত, চোয়াল ও মাথার চুল পুড়ে গেছে। তাঁকে সার্জারি ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রাজ্জাক বলেন, নিহত পুতুলের মা পুষ্প রানী দাস তাঁর জামাতা প্রদীপের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। প্রদীপ পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন।

 

 

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৩২ বার

[hupso]
সর্বশেষ খবর
হাবিবুর রহমান।। প্রায় ২যুগ পেরিয়ে গেলেও এমপিও ভূক্ত হয়নি যশোরের…