শিরোনামঃ

» টানা ১০ বছর পর মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচন ঃ মনোনয়ন বিক্রি শুরু,প্রার্থীদের ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা 

প্রকাশিত: ০৪. ডিসেম্বর. ২০২০ | শুক্রবার

মাসুদ রানা,মোংলা।।টানা ১০ বছর পর মোংলা পোর্ট পৌর সভার নির্বাচনকে ঘিরে মেয়র ও কাউন্সির প্রার্থীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। এ নির্বাচনী দলীয় সমর্থন ও মনোনয়ন পেতে শুরু হয়েছে প্রার্থীদের নানা তৎপরতা।

বিএনপি ও জামায়াত সমর্থক প্রার্থীদের তেমন সাড়া না থাকলেও আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী ও সমর্থকদের তৎপরতা রয়েছে চোখে পড়ার মতো।

দ্বিতীয় ধাপে নির্বাচন কমিশনের ঘোষনা অনুযায়ী আগামী ২০ ডিসেম্বর মনোপত্র দাখিল ও আগামী ১৬ জানুয়ারী মোংলা পোর্ট পৌর সভার ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। তাই এ নির্বাচনে অংশ গ্রহন ও সম্ভাব্য প্রার্থীরা দলীয় সমর্থন ও মনোনয়ন পেতে ইতিমধ্যে দৌড় ঝাপ শুরু করছেন নির্বাচনের অংশ নেয়ার জন্য দলীয় প্রার্থীরা।

ইতি মধ্যে লোভিং শুরু করছেন দলের স্থানীয় পর্যায় থেকে শুরু করে হাইকমান্ড পর্যন্ত।

সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত দলীয় কার্যলয় থেকে মনোনয়ন সংগ্রহে ভীড় করছেন সম্ভব্য প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা।

পৌর সভার ৯টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ৩টি সংরক্ষিত আসনের বিপরীতে অর্ধ শতাধিক সম্ভব্য প্রার্থী মনোনয়ন সংগ্রহ করেন।

প্রতিটি মনোনয়নের জন্য অফেরৎ যোগ্য ৫ হাজার টাকা জামানত দিতে হচ্ছে তাদের। আর মেয়র পদে প্রার্থীতার বিষয় দলের কেন্দ্রীয় পর্যায় থেকে সিদ্ধান্ত গ্রহনের অপক্ষোয় থাকতে হচ্ছে।

মোংলা পোর্ট পৌর আওয়ামীলীগের সহ-সাধারণ সম্পাক ও দলীয় মনোনয়ন বিতরনের পরিচালক মোঃ সাখাওয়াত হোসেন মিলন জানান, মেয়র ও কাউন্সির পদে একাধিক প্রার্থী থাকায় বিশৃংখলা এড়াতে ৪ ডিসেম্বর শুক্রবার থেকে স্থানীয় আওয়ামী লীগ কাউন্সির পদের মনোনয়ন পত্র বিক্রি শুরু করে।

সকাল ৮টা থেকে শুরু হওয়া দলীয় মনোনয়ন বিক্রি চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। তাই যারা পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় ভাবে অংশ গ্রহন করতে চায়, তাদের জন্য এ পদ্ধতির ব্যবস্থা করেছে দলীয় কার্যালয় থেকে।

আর দলীয় নেতৃবৃন্দ এ সকল মনোনয় প্রত্যাশীদের আবেদন যাচাই বাছাই করে দলের নিয়ম বিশৃংখলা বজায় রাখতে একক প্রার্থীকে চুড়ান্ত মনোনয়ন নেয়ার জন্য অনুমতি প্রদান করা হবে।

মোংলা বন্দর ও শিল্পাঞ্চল কেন্দ্রিক শ্রমিক অধুষিত এ পৌর সভার ভোটার সংখ্যা প্রায় ৩১ হাজার বলে জানায় উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসার।

এ পৌর সভায় সর্বশেষ নির্বাচন আনুষ্ঠিত হয় ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারী। এতো দিন সীমানা জটিলতার মামলায় মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচন আটকে ছিল।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৩৫ বার

[hupso]