শিরোনামঃ

» তেকানি ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে শাহীন মন্ডল নৌকার প্রত্যাশী হিসাবে নির্বাচন করতে চান

প্রকাশিত: ৩০. নভেম্বর. ২০২০ | সোমবার

কাজিপুর সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি।।সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর উপজেলার তেকানি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহীন মন্ডল তেকানি  ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকার প্রত্যাশী হয়ে জনগনের সেবা করতে চায়।

বিশিষ্ট সমাজ সেবক, সৎ যোগ্য ও নিষ্ঠাবান ,যিনি তেকানি ইউনিয়নের অসহায় মানুষের নির্ভর যোগ্য ব্যক্তি হিসাবে মানুষের মন কেড়েছে শাহীন মন্ডল।

তেকানি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহীন মন্ডলকে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় ইউনিয়নবাসী। এমনটাই আশাবাদী শাহীন মন্ডল।

এই প্রতিনিধিকে জানান ১৯৮৭ সালে ছাত্র রাজনীতি থেকেই বিএনপি জামাতের বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগ্রাম করেছি।জাতীয় নেতা, প্রিয় নেতা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪দলের মুখ পাত্র, একাধিক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করা, সাবেক সফল স্বাস্থ্যমন্ত্রী সদ্য প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিম সাহেবের মিছিল মিটিংয়ে সর্বক্ষণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছি।

জাতীয় নেতা শহীদ এম মনসুর আলীর দোহিত্র, জাতীয় নেতা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দলের মুখ পাত্র, একাধিক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করা সাবেক সফল স্বাস্থ্য মন্ত্রী সদ্য প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিমের সাহেবের যোগ্য সন্তান, বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি সিরাজগঞ্জ ১ জাতীয় সংসদ সদস্য প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয় ভাইকে বিজয় করতে কেন্দ্রে শতভাগ ভোটার উপস্থিতি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছি।

দক্ষতার সাথে ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছি ৯বছর।ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছি ৫ বছর।বর্তমান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছি।

জাতীয় সংসদ সদস্য প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয় এমপি মহোদয়ের প্রতি শতভাগ আস্থা ও বিশ্বাস রেখে তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ‍্যে তেকানি ইউনিয়ন কে যেন একটি ডিজিটাল ইউনিয়ন উপহার দিতে পারি।

আমি মনে করি  এ লক্ষ‍্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে দল আমাকে নৌকা প্রতিক উপহার দিয়ে সেটা মূল্যায়ন করবে।

ইতিমধ্যে তেকানি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের হাট বাজারের চার স্টল গুলোতে
আলোচনার শীর্ষে উঠে এসেছে শাহীন মন্ডলের নাম।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৩৮ বার

[hupso]