শিরোনামঃ

» পাম্প ধর্মঘট খুচরা পেট্রোল ১১০ টাকা”বিপাকে সাধারণ মানুষ

প্রকাশিত: ০১. ডিসেম্বর. ২০১৯ | রবিবার

স্টাফ  রিপোর্টার : আপডেট বাংলা নিউজ: খুলনা, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগে পেট্রোল পাম্পের মালিকরা ১৫ দফা দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ধর্মঘট পালন করছে। তারই ধারাবাহিকতায় যশোরের প্রতিটা পাম্পে পেট্রোলসহ সকল জ্বালানি বিক্রি বন্ধ রেখেছে পাম্প কৃতপক্ষ।

রোববার (১ ডিসেম্বর) সকাল ৬ টা থেকে তেল বিক্রি বন্ধ করে দেয় পেট্রোল পাম্পগুলো।

বাংলাদেশ জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতির যশোর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এ কে এম শামসুল কাদের মিন্টু জানান, কেন্দ্রীয় সমিতির সিদ্ধান্ত মোতাবেক পেট্রোল পাম্প মালিকরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মালিকরা ১৫ দফা দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এ ধর্মঘট ডেকেছেন। এ কারণে জেলায় সকল প্রকার জ্বালানি তেল বিক্রয় ও উত্তোলন বন্ধ রয়েছে।

এদিকে ধর্মঘটের ফলে বিপাকে পড়েছে সাধারণ জনগণ। যারা ধর্মঘটের আভাস পেয়েছিল তারা আগে থেকেই প্রয়োজনীয় জ্বালানি মজুদ করে রেখেছিল।আর যেসকল মানুষ ধর্মঘটের বিষয়ে জানতো না তাদের পড়তে হয়ছে চরম বিপাকে।বেশিরভাগ মোটরসাইকেল চালকরা বেকায়দায় আছেন, চলতি পথে পেট্রোল না পেয়ে চালকরা তাদের গন্তব্য পৌঁছাতে অক্ষম হচ্ছে।

মোটরসাইকেল চালক রাশেদুজ্জামান অভিযোগ করে বলেন, পেট্রোল পাম্পের মালিকরা ধর্মঘট করেছে সেইজন্য পাম্পে তেল দেয়নি। ফলে বাধ্য হয়ে খুচরো বোতলজাতকৃত পেট্রোল বেশি দাম দিয়ে কিনতে হলো। প্রতি লিটার পেট্রোল ১১০ টাকা করে বিক্রি করছে অসাধু দোকানদারেরা।

দাবিগুলো হলো- জ্বালানি তেল বিক্রির প্রচলিত কমিশন কমপক্ষে সাড়ে ৭ শতাংশ করা, জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীরা কমিশন এজেন্ট নাকি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান-বিষয়টি সুনির্দিষ্টকরণ, প্রিমিয়াম পরিশোধ সাপেক্ষে ট্যাংকলরি শ্রমিকদের ৫ লাখ টাকা দুর্ঘটনা বিমা প্রথা প্রণয়ন, ট্যাংকলরির ভাড়া বৃদ্ধি, পেট্রোল পাম্পের জন্য কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদফতরের লাইসেন্স গ্রহণ বাতিল, পেট্রোল পাম্পের জন্য পরিবেশ অধিদফতরের লাইসেন্স গ্রহণ বাতিল, পেট্রোল পাম্পে অতিরিক্ত পাবলিক টয়লেট, জেনারেল স্টোর ও ক্লিনার নিয়োগের বিধান বাতিল, সড়ক ও জনপথ বিভাগ কর্তৃক পেট্রোল পাম্পের প্রবেশদ্বারের ভূমির জন্য ইজারা গ্রহণের প্রথা বাতিল।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৩১ বার

[hupso]
সর্বশেষ খবর
  জসিম উদ্দিন(শার্শা) যশোর প্রতিনিধি: যশোরের শার্শায় বন্যা ইসলামী ডেভলপমেন্ট…