শিরোনামঃ

» পৌর নির্বাচনে তৃতীয় ধাপে মেয়র নির্বাচিত হলেন যারা

প্রকাশিত: ৩১. জানুয়ারি. ২০২১ | রবিবার

বেত্রাবতী ডেস্ক।।সংঘর্ষ, কেন্দ্র দখল, প্রার্থীর ভোট বর্জন ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে তৃতীয় ধাপে ৬২ পৌরসভার ভোটগ্রহণ। তবে কোথাও কোথাও শান্তিপূর্ণ ও দীর্ঘলাইনে দাঁড়িয়ে ভোটারদের ভোট দিতেও দেখা গেছে।

শনিবার (৩০ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হয়। এরপর কেন্দ্রে কেন্দ্রে প্রার্থীদের এজেন্টদের উপস্থিতিতে ভোট গণনা শুরু হয়।

এরই মধ্যে কয়েকটি পৌরসভায় মেয়র পদের ফলাফল পাওয়া গেছে।

আওয়ামী লীগ

ফেনী পৌরসভা নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয় লাভ করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী। তিনি পেয়েছেন ৬৯ হাজার ৩০৯ ভোট। আর বিএনপির মনোনীত প্রার্থী আলাল উদ্দিন আলাল (ধানের শীষ) পেয়েছেন ১ হাজার ৯৪৯ ভোট। নড়াইল পৌরসভায় মেয়র পদে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আঞ্জুমান আরা ১৯ হাজার ২৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী জুলফিকার আলী মণ্ডল পেয়েছেন ৩ হাজার ৮৭১ ভোট।

কালিয়া পৌরসভায় নৌকার প্রার্থী ওয়াহিদুজ্জামান হীরা ১২ হাজার ২১১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী স ম ওয়াহিদুজ্জামান মিলু ধানের শীষ প্রতীকের নিয়ে পেয়েছেন ৬২৬ ভোট। বগুড়ার ধুনট পৌরসভায় জয়লাভ করেছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এ জি এম বাদশাহ। তিনি জগ প্রতীক নিয়ে তিন হাজার ৯০২ ভোট পেয়ে তৃতীয়বারের মতো মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী অধ্যাপক টি আই এম নুরুন্নবী তারিক। তিনি পেয়েছেন দুই হাজার ৯৩২ ভোট।

শিবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে বর্তমান মেয়র আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী তৌহিদুর রহমান মানিক (নৌকা) মেয়র পদে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ১২ হাজার ৩৯৮ ভোট। তার নিকটতম বিএনপির প্রার্থী মতিয়ার রহমান মতিন (ধানের শীষ) পেয়েছেন ২ হাজার ৩৬৬ ভোট।

নন্দীগ্রাম পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত আনিসুর রহমান (নৌকা) মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৭ হাজার ৬৮৩ ভোট। তার নিকটতম বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সুশান্ত কুমার শান্ত (ধানের শীষ) পেয়েছেন ৫ হাজার ১৮৩ ভোট। ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু নৌকার প্রার্থী ফারুক হোসেন ৭ হাজার ৩৪৭ ভোট পেয়েজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাইফুল ইসলাম টিপু মল্লিক জগ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪ হাজার ৬৩৪ ভোট।

কোটচাঁদপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শহিদুজ্জামান সেলিম জয়ী হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৮ হাজার ৩৪২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ধানের শীর্ষের প্রার্থী সালাউদ্দিন বুলবুল সিডল পেয়েছেন ৭ হাজার ১১৯ ভোট। দিনাজপুরের হাকিমপুর পৌরসভায় দ্বিতীয় বারের মত নৌকা প্রতীক নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন জামিল হোসেন চলন্ত। তিনি নৌকা প্রতিক নিেেয় ১০ হাজার ৯৯২ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির দলীয় প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন শিল্পী। তিনি ধানের শীষ নিয়ে ৪ হাজার ৯৩৭ ভোট পেয়েছেন।

চুয়াডাঙ্গার দর্শনা পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মতিয়ার রহমান বেসরকারিভারে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ১৭ হাজার ৭৪২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপির প্রার্থী হাবিবুর রহমান পেয়েছেন এক হাজার ৯১ ভোট।

নেত্রকোনার দুর্গাপুর পৌর নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয় যুক্ত হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী আলাউদ্দিন আলাল। তিনি নৌকা প্রতীক পেয়েছেন ১১ হাজার ১২৩ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামাল উদ্দিন ধানের শীষ প্রতীক পেয়েছেন ১ হাজার ৮৯৯ ভোট। টাঙ্গাইলের সখীপুর পৌর সভা নির্বাচনে তৃতীয় বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হানিফ আজাদ। তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে ৭ হাজার ৮৩৩ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী স্বতন্ত্র প্রার্থী সানোয়ার হোসেন সজীব ৭ হাজার ৫৩৮ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় হয়েছেন।

কুড়িগ্রামের উলিপুর পৌরসভায় নৌকার প্রার্থী আলহাজ্ব মামুন সরকার মিঠু ১৫৫৬৭ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী পেয়েছেন ৭৪১৩ ভোট। যশোরের মণিরামপুর পৌরসভায় টানা দ্বিতীয়বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হলেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী অধ্যক্ষ মাহমুদুল হাসান।

সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভায় জগ প্রতীক নিয়ে বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আমিনুল ইসলাম রাবেল। তিনি পেয়েছেন ৫ হাজার ৮৫১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাকারিয়া আহমদ পাপলু পেয়েছেন ৪ হাজার ৫৫৮ ভোট। সিলেটের জকিগঞ্জে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল আহাদ জয়ের পথে ছিলেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ফারুক আহমদ। নওগাঁর ধামইরহাট পৌরসভা নির্বাচনে দ্বিতীয় বারের মতো মেয়র পদে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী আমিনুর রহমান। তিনি ৭৯৮৩ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় বারের মতো নির্বাচিত হন।

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভা নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী খালেদ সাইফুল্লাহ ১৩,৫১২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি নোয়াখালী-৩ (বেগমগঞ্জ) আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরণ এর বড় ভাই। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের আক্তার হোসেন ফয়সল পেয়েছেন ১০,৯৯৫ ভোট।

রাজবাড়ীর পাংশা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মো. ওয়াজেদ আলী মন্ডল বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে তিনি ১১ হাজার ১৬১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ফজলুল হক ফরহাদ পেয়েছেন ৪ হাজার ২৪৩ ভোট।

বরগুনা পৌরসভায় বে-সরকারি ভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন নৌকার প্রার্থী অ্যাডঃ কামরুল আহসান মহারাজ। তিনি পেয়েছেন ৯,৩৬৭ ভোট। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী শাহাদাত হোসেন পেয়েছেন ৬,৬৩৬ ভোট। পাথরঘাটা পৌরসভায় বে-সরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আনোয়ার হোসেন আকঁন। তিনি পেয়েছেন ৬০৬৭ ভোট। তার নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহাবুবুর রহমান পেয়েছেন ২২৩২ ভোট।

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে আওয়ামী লীগ প্রার্থী জি এম মীর হোসেন মীরু ও কুমিল্লার বরুড়া পৌরসভা নির্বাচনে মো. বক্তার হোসেন ওরফে বখতিয়ার জয়ী হয়েছেন। তারা দুজনেই আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতিক নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। ঝালকাঠির নলছিটিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী আব্দুল ওয়াহেদ কবির খান বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন।

নোয়াখালীর হাতিয়া পৌরসভার নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কেএম ওবায়দুল্লাহ বিপ্লব বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ভোট পেয়েছেন ১৬ হাজার ৯৯৮ জন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী কাজী আব্দুর রহিম পেয়েছেন ২ হাজার ৮৫৫ ভোট। নাটোরের সিংড়া পৌরসভায় মেয়র পদে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন জান্নাতুল ফেরদৌস। তিনি আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী।

মুন্সীগঞ্জ পৌরসভায় দ্বিতীয় বারের মতো জয়লাভ করেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাজী মোঃ ফয়সাল বিপ্লব। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন বিএনপির দলীয় ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মোঃ শহীদুল ইসলাম।

বিএনপি

এদিকে কাহালু পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত আব্দুল মান্নান ওরফে ভাটা মান্নান (ধানের শীষ) মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৫ হাজার ২৮১ ভোট। তার নিকটতম আওয়ামী লীগ মনোনীত আলহাজ হেলাল উদ্দিন কবিরাজ । তিনি পেয়েছেন ৪ হাজার ২৯০ ভোট। গাবতলী পৌরসভায় বিএনপি মনোনীত বর্তমান মেয়র সাইফুল ইসলাম (ধানের শীষ) পুনরায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৭ হাজার ৯৪৩ ভোট। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের মোমিনুল হক শিলু (নৌকা) পেয়েছেন ৬ হাজার ২৪৫ ভোট

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৮১ বার

[hupso]
সর্বশেষ খবর
বেত্রাবতী ডেস্ক।। ২০২০ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় সারাদেশে জিপিএ…