শিরোনামঃ

» ভবদহে ‘লুটপাটের’ ৮০৮ কোটি টাকার প্রকল্প প্রস্তাবনা বাতিল দাবি

প্রকাশিত: ১০. আগস্ট. ২০২০ | সোমবার

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের ভবদহ এলাকার জলাবদ্ধতার স্থায়ী সমাধানে জনগণের মতামতের ভিত্তিতে গৃহীত টিআরএম প্রকল্প বাস্তবায়নের দাবিতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পাঠানো হয়েছে। রোববার দুপুরে জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে এই স্মারকলিপি পাঠানো হয়। স্মারকলিপিতে সম্প্রতি এই এলাকার জন্য ৮০৮ কোটি টাকার ‘লুটপাটের’ প্রকল্প প্রস্তাবনা বাতিল করে ২০১৭ সালে গৃহীত বাস্তবমুখী টিআরএম প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাওয়া হয়।

ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটি এই স্মারলিপি দেয়ার আগে জেলা প্রশাসন চত্বরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। এসময় সংগঠনটির আহ্বায়ক রনজিৎ বাওয়ালীর সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন প্রধান উপদেষ্টা ইকবাল কবির জাহিদ, উপদেষ্টা অ্যাড. আবুল হোসেন, হাচিনুর রহমান, জিল্লুর রহমান ভিটু, তসলিম-উর-রহমান, যুগ্মআহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা গাজী আব্দুল হামিদ, সদস্য সচিব চৈতন্য পাল, সদস্য নিজাম উদ্দিন, কানু বিশ্বাস, শিব পদ, মানব মন্ডল, রাজু আহম্মেদ, শেখর বিশ্বাস, সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।
স্মারকলিপিতে বলা হয়, ভবদহ অঞ্চলের ৫২ বিল পাড়ের ২০০ গ্রামের ১০ লক্ষাধিক মানুষকে উচ্ছেদ করে জলাভূমি করার চক্রান্ত দীর্ঘদিনের।

সেই চক্রান্তের অংশ হিসেবে ২০১৭ সালে গৃহীত টিআরএম প্রকল্প বাতিল করে দেয়া হয়েছে। এখন জলাবদ্ধতা দূরীকরণের নামে লুটপাটের জন্য ৮০৮ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণের চক্রান্ত চলছে। এত বড় প্রকল্প ভবদহ জনপদের মানুষের কোন মতামত নেয়া হয়নি। প্রকল্পটি গণবিরোধী। এর আগে জনপদের মানুষ জোয়ারাধার বাস্তবায়নের (টিআরএম) পক্ষে মত দেয়। যার ভিত্তিতে ২০১৭ সালে টিআরএম প্রকল্প গৃহীত হয়। সেই প্রকল্প বাতিল করে ৮০৮ কোটি টাকার ‘লুটপাট আর ভাগবাটোয়ারার প্রকল্প তৈরি করা হচ্ছে।

এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে এই অঞ্চলের ১০ লক্ষাধিক মানুষ জনপদ থেকে উচ্ছেদ হবে। তাই এই গণবিরোধী প্রকল্পের ভাবনা বাদ দিয়ে দ্রুত টিআরএম প্রকল্প বাস্তবায়নের দাবি জানানো হচ্ছে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪৬ বার

[hupso]
সর্বশেষ খবর
যশোরের কেশবপুরে ফুটপাত দখলে নিয়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি হচ্ছে।…