শিরোনামঃ

» মুসলমান ছাড়া সব ধর্মের মানুষকে আস্বস্ত করলেনঃ- অমিত সাহা

প্রকাশিত: ২০. নভেম্বর. ২০১৯ | বুধবার

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও দেশটির ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) সভাপতি অমিত শাহ বলেছেন, ‘আসামের মতোই নাগরিক তালিকা বা জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকা (এসআরসি) সারা ভারতেই করা হবে। এ জন্য কোনো ধর্মের কারোরই উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত নয়।

এছাড়া হিন্দু, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ এবং খ্রিস্টান শরণার্থীদের আশ্বস্ত করতে চাই যে, সরকার আপনাকে ভারত ছাড়তে বাধ্য করবে না।

বুধবার রাজ্যসভার অধিবেশনে এসব কথা বলেছেন অমিত শাহ। তবে মুসলিম শরণার্থীদের ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেননি তিনি।

রাজ্যসভার এই অধিবেশনে বিজেপির প্রধান বলেন, দেশের প্রত্যেককেই নাগরিক তালিকার আওতায় আনতে এনআরসি একটি প্রক্রিয়া মাত্র। তিনি বলেন, ‘এনআরসি দেশজুড়ে অনুষ্ঠিত হবে; ওই সময় আসামে ফের এনআরসি করা হবে। এ নিয়ে যেকোনো ধর্মের কারোরই উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত নয়। ’

চলতি বছরের মাঝের দিকে ভারতের ব্যাপক বিতর্কিত জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকা কর্মসূচি শুরু হয় আসাম প্রদেশে। এই রাজ্যের প্রায় ১৯ লাখ মানুষ ভারতীয় নাগরিকত্ব তালিকায় ঠাঁই পাননি। দেশটির কর্মকর্তারা বলেছেন, নাগরিকত্ব তালিকা থেকে বাদ পড়াদের অধিকাংশই যথাযথ নথিপত্র উপস্থাপন করতে পারেনি।

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও দেশটির ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) সভাপতি অমিত শাহ বলেছেন, ‘আসামের মতোই নাগরিক তালিকা বা জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকা (এসআরসি) সারা ভারতেই করা হবে। এ জন্য কোনো ধর্মের কারোরই উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত নয়।

এছাড়া হিন্দু, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ এবং খ্রিস্টান শরণার্থীদের আশ্বস্ত করতে চাই যে, সরকার আপনাকে ভারত ছাড়তে বাধ্য করবে না। ’

বুধবার রাজ্যসভার অধিবেশনে এসব কথা বলেছেন অমিত শাহ। তবে মুসলিম শরণার্থীদের ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেননি তিনি।

রাজ্যসভার এই অধিবেশনে বিজেপির প্রধান বলেন, দেশের প্রত্যেককেই নাগরিক তালিকার আওতায় আনতে এনআরসি একটি প্রক্রিয়া মাত্র। তিনি বলেন, ‘এনআরসি দেশজুড়ে অনুষ্ঠিত হবে; ওই সময় আসামে ফের এনআরসি করা হবে। এ নিয়ে যেকোনো ধর্মের কারোরই উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত নয়। ’

চলতি বছরের মাঝের দিকে ভারতের ব্যাপক বিতর্কিত জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকা কর্মসূচি শুরু হয় আসাম প্রদেশে। এই রাজ্যের প্রায় ১৯ লাখ মানুষ ভারতীয় নাগরিকত্ব তালিকায় ঠাঁই পাননি। দেশটির কর্মকর্তারা বলেছেন, নাগরিকত্ব তালিকা থেকে বাদ পড়াদের অধিকাংশই যথাযথ নথিপত্র উপস্থাপন করতে পারেননি।

ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকার বলছে, নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়াদের ‘অবৈধ’ ঘোষণা করতে সরকার তড়িঘড়ি করবে না। তারা (এনআরসি থেকে বাদ পড়া) ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পারবেন। সেখানে ব্যর্থ হলে বিষয়টি নিয়ে আদালতেও যেতে পারবেন।

অমিত শাহ বলেন, ‘এনআরসি থেকে যাদের নাম বাদ পড়েছে তারা ট্রাইব্যুনালে যেতে পারেন। আসাম রাজ্য সরকার তাদের আর্থিক সহায়তা দেবে। ’

এর আগে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতায় এক সমাবেশে অংশ নিয়ে দেশটির এই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এনআরসি হচ্ছে জাতীয় নিরাপত্তার বিষয় এবং কোনও দেশই এত বেশি অনুপ্রবেশকারী সঙ্গে নিয়ে মসৃণভাবে চলতে পারে না।

লাখ লাখ হিন্দুকে পশ্চিমবঙ্গ ছাড়ার বিষয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মিথ্যাচার ছড়াচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন অমিত শাহ। তিনি বলেন, ‘আজ আমি হিন্দু, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ এবং খ্রিস্টান শরণার্থীদের আশ্বস্ত করতে চাই যে, সরকার আপনাকে ভারত ছাড়তে বাধ্য করবে না। ’

সূত্র : এনডিটিভি

 

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১২৩ বার

[hupso]
সর্বশেষ খবর
নিজস্ব প্রতিবেদক :টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ২য় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টায় বুদ্দু…