শিরোনামঃ

» মেয়র ও ইউএনও’র মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনা!

প্রকাশিত: ১২. অক্টোবর. ২০২০ | সোমবার

পাবনা প্রতিনিধি :পাবনার বেড়া উপজেলার কাজিরহাট ও নগরবাড়ী ঘাট ইজারা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় পৌর মেয়র ও ইউএনও’র মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে।

ইউএনও আসিফ আনাম সিদ্দিকীর অভিযোগ মেয়র তার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন।

অপরদিকে বেড়া পৌর মেয়র আব্দুল বাতেন এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, ইউএনও দু’টি বড় ঘাট ইজারার রেজুলেশন নিয়ে অযথা জটিলতা সৃষ্টি করেন। এ নিয়ে তিনি শুধুমাত্র আপত্তি জানিয়েছেন।

সোমবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে এ ঘটনা উল্লেখ করে ইউএনও পাবনার জেলা প্রশাসকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে সোমবার বিকালে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ সোমবার রাতে অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে জানান, বেড়া পৌরসভার মেয়র আব্দুল বাতেন উপজেলার কাজিরহাট ও নগরবাড়ী ঘাট ইজারা সংক্রান্ত একটি লিখিত রেজুলেশন ইউএনও আসিফ আনাম সিদ্দিকীকে অনুমোদনের জন্য চাপ দেন। কিন্তু বিষয়টি নীতিমালা বহির্ভূত হওয়ায় ইউএনও তা অনুমোদনে অস্বীকৃতি জানান।

তখন মেয়র আব্দুল বাতেন তার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। এ ব্যাপারে সরকারের ঊর্ধ্বতন মহলে অবহিত করা হয়েছে বলে তিনি জানান। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসিফ আনাম সিদ্দিকী জানান, একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার বিস্তারিত ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। তিনি এর বেশি কিছু বলতে চাননি।

এ ব্যাপারে বেড়া পৌর মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল বাতেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ইউএনও’র সঙ্গে অসৗজন্যমূলক আচরণের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ৫ কোটি ৪ লাখ টাকায় উপজেলার কাজীর হাট ঘাট ও নগরবাড়ি বন্দর ইজারা দেয়া হয়। এই অর্থ সরকারি কোষাগারে এবং উপজেলার অংশ উপজেলায় জমা করার বিষয় নিয়ে গত মাসের ২২ তারিখে অনুষ্ঠিত সভায় একটি রেজুলেশন করা হয়। ওই রেজুলেশন নিয়ে ইউএনও জটিলতা সৃষ্টি করায় সোমবারের সভায় আমি আপত্তি জানিয়েছি।

সভায় উপস্থিত ছিলেন বেড়া উপজেলা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মেজবাহ উদ্দিন, পুরান ভারেঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল্লাহ, জাতসাকিনী ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল হক বাবু, রুপপুর ইউপি চেয়ারম্যান উজ্জল হোসেন, আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক, বেড়া থানার ওসি আবুল কাশেমসহ উপজেলার বিভিন্ন সরকারি অফিসের কর্মকর্তা।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৭ বার

[hupso]
সর্বশেষ খবর
ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে নারী ও শিশু নির্যাতন…