শিরোনামঃ

» মোংলায় স্বেচ্ছাসেবক দলের অবৈধ পৌর কমিটি ঘোষনায় নেতা কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ, শারীরক ভাবে জখম -২

প্রকাশিত: ১৭. মে. ২০২১ | সোমবার

মাসুদ রানা,মোংলা।।বাগেরহাট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারন সম্পাদক সহ ৪ জনের স্বাক্ষরিত ১৬ই মে রবিবার এক প্রেস নোটের মাধ্যমে দলীয় প্যাডে মোংলা পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে।

মোংলা পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের ৭ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক ঘোষিত কমিটিতে অনেকেরই স্থান হয়নি। এজন্য সংগঠনটির নেতাকর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ নিয়ে চলচ্ছে নেতাকর্মীদের মাঝে নিরব ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। এতে করে উভয় পক্ষের দুইজন শাররীক ভাবে জখম হওয়ার অভিযোগ উঠে।

মোংলা স্বেচ্ছাসেবক দলের এক নেতার প্রশ্ন, কমিটি জমা দিলাম ঘোষণা হল ব্যাতিক্রম ভাবে কেন? আংশিক কমিটিতে ছাত্রদলের সাবেক নেতারা একেবারে নেই, । তবে প্রত্যাশার তুলনায় ত্যাগী নেতাদের পদ দেয়া হয়নি, তা অস্বীকার করা যাবে না।

নির্দিষ্ট সময়ান্তে সম্মেলন ও কমিটি গঠিত না হওয়া।বছরের পর বছর পদ ও পদবি ব্যবহার করে অছাত্র, অরাজনৈতিক ব্যাক্তি ও পরিণত বয়স্করা যখন রাজনৈতিক শক্তিকে আয়-উপার্জনের পথ হিসেবে বেছে নেন, তখন অপেক্ষাকৃত তরুণেরাও অর্থের বিনিময়ে তাঁদের সহযোগী হয়ে ওঠেন। আদর্শ বলে কিছুই থাকে না।

স্বেচ্ছাসেবক দলের অনেক ত্যাগী নেতার নাম ছিল। কিন্তু ঘোষণা করা হয়েছে একেবারে ফালতু ও অর্থ বিনিময়ের কমিটি। অনেকে বাদ পড়েছেন। আশা করছি এ কমিটি তেমন কোন ভুমিকা রাখতে পারবে না বর্তমান আন্দোলন সংগ্রামে।

সেচ্ছাসেবক দলের মোংলা পৌর কমিটিতে পদ না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাবেক ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতারা। তবে ক্ষুব্ধ নেতারা কেউ নিজের নাম প্রকাশ করতে চাননি এ প্রতিবেদকের কাছে।

এ নিয়ে মোংলার একটি হোটেলে বসে বৈঠকও করেছেন তারা। সেখানে স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটিতে তাদেরকে না রাখা কোনো ‘ষড়যন্ত্র’ কিনা তা খতিয়ে দেখতে মোংলা পৌর বিএনপি ও জেলা বিএনপির নেতাদের অনুরোধ জানাবেন। পরবর্তীতে বৈঠক করে তারা করনীয় নির্ধারণ করবেন বলে বিশ্বস্ত সুত্রে জানা গেছে।

রবিবার মোংলা পৌর স্বেচ্ছাসেবক  দলের কমিটি ঘোষণার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ছাত্রদলের সাবেক নেতাদের ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে। তারা জানান,স্বেচ্ছাসেবক দলের মোংলা পৌর কমিটিতে ত্যাগী ও পরীক্ষিত ছাত্রদল ও সেচ্ছাসেবক দলের সাবেক নেতাদের পদ দেয়া হবে-এমন আশ্বাস ও পেয়েছিল অনেকে। অথচ বাস্তবে তা দেখা যায়নি।

সর্বশেষ স্বেচ্ছাসেবক দলে যাদেরকে পদ দেয়া হয়েছে, তাদর অনেকেই নিস্ক্রিয় ও মাদকাসক্ত । অথচ ছাত্রদলের সাবেক নেতাদের মূল্যায়ন করা হয়নি, যা দুঃখজনক।

 

মোংলা পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক ও জেলা কমিটির সদস্য বাবলু ভুইয়া বলেন, তানু ভুইয়ার ঘোষিত কমিটিতে জেলা সভাপতির স্বাক্ষর নেই।বিভাগীয় টিম অবগত নয় ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে তানু ভুইয়াকে ফেসবুক থেকে অবৈধ কমিটির পোস্ট সরিয়ে নিতে বলা হয়েছে।সুতারং আমাদের নেতৃত্বে গঠিত কমিটি সংক্রিয় আছে।

বাগেরহাট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম শান্ত বলেন, তারেক রহমানের নির্দেশে সারাদেশে ছাত্রদল যুবদল সেচ্ছাসেবক দলের কমিটির জন্য বিভাগীয় কমিটি গঠন করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটি। কিন্তু তাদের সাথে কোন পরামর্শ না করে এমন একটি অরাজৈনিক ও আত্নঘাতী আংশিক কমিটি ঘোষনা করায় এ কমিটি সম্পূর্ণ অবৈধ । তবে তিনি আরো বলেন আংশিক কমিটি করার কোন নিয়ম নেই সম্মেলন করে ত্যাগীদের মুল্যায়ন করে সম্পূর্ণ কমিটি ঘোষনা করার নিয়ম রয়েছে। বর্তমান এ কমিটিতে আমার সভাপতি হিসাবে কোন স্বাক্ষর নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি।

খুলনা বিভাগের স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক গালিব ইমতিয়াজ নাহিদ তার ফেসবুকে লিখেছেন, বাগেরহাট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক তানু ভূইয়াকে ফেসবুকে অসাংগঠনিক ও এখতিয়ার বর্হিভূত কমিটি নিয়ে পােস্ট মুছে ফেলার জন্য অনুরােধ করা হলাে।

অন্যথায় তাহার বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় সংসদ সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য থাকিবে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দেশব্যাপী যে সাংগঠনিক টিম করে দিয়েছেন তাদের পরামর্শ ব্যতীত কারাে ইউনিট কমিটি গঠনের এখতিয়ার নেই।

সুতরাং সাংগঠনিকভাবে এই কমিটির কোন বৈধতা নেই।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪৯ বার

[hupso]