কিন্তু বুধবার বার্সিলোনা সভাপতি জোসেফ মারিয়া বার্তোমেউয়ের সঙ্গে মেসির বাবা ও এজেন্ট জর্জ মেসির প্রথম দফা বৈঠকের পর চিত্রনাট্য আচমকাই পাল্টে গেছে। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে জোর গুঞ্জন, মেসি শেষ পর্যন্ত বার্সিলোনাতেই থাকছেন। এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন স্বয়ং মেসির বাবাও। এছাড়া আর্জেন্টিনার একজন সাংবাদিকও টুইট করেছেন যে মেসির বার্সায় থাকা ছাড়া কোন উপায় নেই। মূলত বৈঠকে দু’পক্ষের মধ্যে দফারফা না হওয়ায় অনেকটা বাঁধ্য হয়েই ন্যুক্যাম্পে থাকতে হচ্ছে ছয়বারের ফিফাসেরা তারকাকে। বার্সার সঙ্গে মেসির চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে ২০২১ সালের জুন মাসে। এই হিসেবে আরও অন্তত নয় মাস বার্সায় থাকতে হবে মেসিকে। বার্সার সঙ্গে মেসির বাবার বৈঠকের দিকে দৃষ্টি ছিল গোটা দুনিয়ার। কিন্তু কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হয়েছে আলোচিত সভা। দেড় ঘণ্টার মিটিংয়ে নিজেদের অবস্থানে অনড় ছিল বার্সা কর্তৃপক্ষ। আবারও আর্জেন্টাইন তারকার ফ্রি ট্রান্সফারের প্রস্তাব তুলে ধরেন জর্জ মেসি। কিন্তু তা প্রত্যাখ্যান করে আরও দুই বছরের নতুন চুক্তির প্রস্তাব দিয়েছে বার্সা। মেসির পক্ষে আলোচনায় ছিলেন তার বাবা, ভাই রড্রিগো এবং একজন আইনজীবী। কাতালান ক্লাবটির পক্ষে ছিলেন সভাপতি বার্তোমেউ ও কর্মকর্তা জ্যাভিয়ের বোর্ডাস। বৈঠক শেষে কোনপক্ষ থেকেই কিছু জানানো হয়নি। তবে সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হয়েছে আলোচনার প্রথমপর্ব। কোন সমাধান না হলেও মুখোমুখি আলোচনা শুরু হওয়ায় কোর্টের বাইরে সমস্যা সমাধানের আশা জেগেছে। ফলপ্রসূ বৈঠক না হলেও এরপর থেকে সুবাতাস বার্সার দিকেই বইতে শুরু করেছে। বার্সিলোনার সমর্থকরাও নড়েচড়ে বসেছেন। এখন মেসির বার্সায় থাকার সম্ভাবনা নাকি ৯০ শতাংশ। এই দাবি আর্জেন্টাইন সাংবাদিক মার্টিন আরেভালোর। তার কথার গুরুত্ব দিচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা। কেননা মেসির ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছে প্রকাশ করে ফ্যাক্স পাঠানোর খবরটা তিনিই প্রথম দিয়েছিলেন। বৈঠকের পর নাকি মেসির উপলব্ধি হয়েছে, বার্সার ইচ্ছার বিরুদ্ধে এখনই ক্লাব ছাড়তে পারবেন না তিনি। এমন করলে আইনগত অনেক ঝামেলা হবে। এ কারণে সদ্য শুরু হওয়া মৌসুমটি অন্তত বার্সায় থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।