শিরোনামঃ

» হাজিরবাগ ইউনিয়নবাসীকে মাহে রমজান ও বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী জাকির 

প্রকাশিত: ১৩. এপ্রিল. ২০২১ | মঙ্গলবার

বিল্লাল হুসাইন।পবিত্র মাহে রমজান এবং বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি হাজিরবাগ ইউনিয়নবাসীর নিকট দোয়া চেয়েছেন যুবলীগ নেতা ও তরুন সমাজসেবক ও চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জাকির হোসেন।

betrabotinew24.com এর একান্ত সাক্ষাতে জাকির হোসেন ইউনিয়নবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন,”

প্রিয় হাজিরবাগ ইউনিয়নবাসী,আসসালামু আলাইকুম।

“পুরাতনকে বিদায় জানিয়ে,নতুনকে সু-স্বাগতম জানিয়ে,রমজান কে আলিঙ্গন করতে হবে।

এই শ্লোগানকে সাথে নিয়েই যেন এসে গেল, বাঙালির সবচেয়ে বড় আনন্দোৎসবের দিন পহেলা বৈশাখ ও রমজানের ঘনঘটা আনন্দ।তবে এবার উৎসব হবে সামাজিক দূরত্ব মেনে, ‘ঘরোয়া’ পরিসরে৷

করোনার প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ায় নববর্ষ উদযাপনের সকল আয়োজন বাতিল করতে বাধ্য হয়েছিল চীন৷ ধীরে ধীরে করোনা ছড়িয়েছে বিশ্বের প্রায় সব দেশে৷ আনন্দ-বিনোদনের সব আয়োজন যেন গুটিয়ে ঘরবন্দি হয়েছে সকল ধর্ম, বর্ণ, জাতির মানুষ৷ করোনাকে এড়িয়ে জীবনরক্ষার এটাই যে সবচেয়ে কার্যকর উপায়!

বাংলাদেশেও বড় আতঙ্ক হয়ে উঠেছে করোনা ভাইরাস৷ আক্রান্ত আর মৃতের সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিন৷ জীবনকে সামাজিক দূরত্বের শৃঙ্খলে আরো কঠোরভাবে আবদ্ধ করা এখন আরো দরকার৷

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে, খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক বিনোদনের বিভিন্ন আয়োজন থেকে শুরু করে , তিন দফায় বেড়েছে ছুটি, মসজিদ-মন্দিরসহ সব উপাসনালয়ে না গিয়ে সরকারি নির্দেশ মেনে ঘরেই উপাসনা শুরু করেছে ধর্মানুরাগী মানুষ৷ ১৪২৭ সালকে সেই নিয়ম মেনেই বরণ করতে চলেছে বাঙালি৷

সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে ছায়ানটের উদ্যোগে রমনার বটমূলে ‘‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো” গেয়ে শুরু হবে না নববর্ষ উদযাপন৷ চারুকলা থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রাও বের হবে না এবার৷ শহর-গ্রামের নানা প্রান্তে বসবে না বৈশাখী মেলা৷

বরং অতি উৎসাহী কেউ যাতে নববর্ষ উদযাপনে বেরিয়ে না পড়ে তা নিশ্চিত করবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী৷

এমন এমন পহেলা বৈশাখ কখনোই দেখেনি বাংলাদেশে৷ প্রাকৃতিক দুর্যোগ এসেছে, রাজনৈতিক অস্থিরতা চরমে পৌঁছেছে, ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় প্রাণও গেছে বহু মানুষের, তবু এতদিন প্রতি পহেলা বৈশাখে প্রাণের টানে নববর্ষ উদযাপনে বেরিয়ে পড়েছে মানুষ৷

করোনা–সংকটে সারা বিশ্ব এখন উৎসবহীন৷ বাংলাদেশেও থাকছে না আয়োজনের ঘনঘটা৷ তবে ঘরে বসে যেভাবে অফিসের কাজ চলছে, উপাসনা চলেছে, সেভাবে উৎসব উদযাপনে কোনো বাধা নেই৷ বাধা নেই দূর থেকে বাঙালির সংস্কৃতি আর মানুষকে ভালোবাসাতেও৷

সারা দেশসহ আমার ইউনিয়নের সকল জনগনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান করেছি।সাথে সাথে সে তার নিজের জন্য ও দোয়া চেয়েছেন।

আগামী ইউপি নির্বাচনে যেন ভোটাররা সৎ, যোগ্য, শিক্ষিত,জনগনের সেবক, কোন লেবাসপরিহিত মুখোশধারী নেতাকে নয়, আপনাদের মুল্যবান ভোটটি যেন হয় আপনার বন্ধুর। যিনি নেতার বেশে নয়। আপনার পাশে যেন সর্বদা থাকবে সেবার হাতবাড়িয়ে বন্ধুর মত তাকেই আপনারা ভোট দিবেন। বেছে নিবেন উত্তম নেতাকে।

 

তিনি আরও বলেন বৈশাখের সাথেই আসছে আমাদের মুসলিম ধর্মের জন্য বড় একটা নিয়মতের মাস মাহে রমজান। আসুন আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস ও আনুগত্য দেখিয়ে আমরা সকলেই দুঃসময়ের সাথে সেটাও পালন করব।

আল্লাহ যেন আমাদের সকলকে এই রমজানের উছিলায় কবুল করেন।(আমিন)

একই সাথে সমগ্রদেশ সহ আমার হাজিরবাগ ইউনিয়ন বাসীর জন্য আমার পক্ষ থেকে জানাই বাংলা নববর্ষের সাথে সাথে রমজান ও বৈশাখের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২১০ বার

[hupso]