শিরোনামঃ

» ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট অনুমোদন দিলো মন্ত্রিসভা

প্রকাশিত: ০৪. জুন. ২০২১ | শুক্রবার

বেত্রাবতী ডেস্ক।।২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট সংসদে উত্থাপনের আগে তা অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা।
বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বেলা সাড়ে ১২টায় সংসদ ভবনের মন্ত্রিসভার কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বিশেষ এই বৈঠক হয়।
প্রতিবছরই বাজেট পেশ করার আগে এখানেই মন্ত্রিসভার এই বিশেষ বৈঠক হয়। মন্ত্রিসভার অনুমোদনের পর এই বাজেট প্রস্তাব রাষ্ট্রপতির সই করার জন্য নেওয়া হবে।
রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তাতে সই করবেন।সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে  বেলা ৩টায় জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করবেন।
এই বাজেটের শিরোনাম রাখা হয়েছে ‘জীবন-জীবিকায় প্রাধান্য দিয়ে সুদৃঢ় আগামীর পথে বাংলাদেশ’।অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল স্বাধীন বাংলাদেশের ৫০তম তথা ২০২১-২২ অর্থবছরের এই বাজেট জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করেন।
বর্তমান সরকারের এটি টানা ১৩তম এবং অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের তৃতীয় বাজেট।আসন্ন বাজেট প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, দেশের সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়ীদের বাঁচানোর লক্ষ্য নিয়েই ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট দেওয়া হবে।
এ বাজেটে সবার স্বার্থ সংরক্ষণ করা হবে। পাশাপাশি পিছিয়ে পড়া প্রান্তিক মানুষকে সঙ্গে রাখা হবে।
অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এবারের বাজেটের সম্ভাব্য আকার ধরা হয়েছে ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকা।
আগামী অর্থবছরে মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ২ শতাংশ।
আগামী বছর অনুদানসহ ঘাটতির পরিমাণ ৬ দশমিক ১ শতাংশ চূড়ান্ত করা হয়েছে, যা টাকার অঙ্কে ২ লাখ ১১ হাজার ১৯১ কোটি টাকা।এবারের বাজেটে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ্য খাতকে।
পাশাপাশি কোভিড-১৯ মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রণোদনা প্রাকেজ বাস্তবায়ন, কৃষি খাত, খাদ্য উৎপাদন ও ব্যবস্থাপনার দিকে বিশেষ নজর থাকছে।
এছাড়াও আগামী অর্থবছরের পুরো সময়েই থাকবে সরকারের নানা ধরনের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি, বাড়ানো হবে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতা। সেই সঙ্গে থাকছে করোনা পরবর্তী অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের রূপরেখা, নতুন কর্মসংস্থান সৃজন।
আগামী বাজেটে থাকছে নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে স্বল্প ও বিনামূল্যে খাদ্য বিতরণের উদ্যোগ। প্রণোদনা প্যাকেজ সফলভাবে বাস্তবায়নে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা এবং বাড়তি খাদ্য উৎপাদনে কৃষিতে গুরুত্ব দেওয়ার বিষয়টিও থাকছে।
সেই সঙ্গে এবারই প্রথম দেশের ১৫০টি উপজেলার বয়স্কজন ও বিধবা নারীদের ভাতা দেওয়া হবে।
সামাজিক নিরাপত্তা বলয়ের আওতায় বাড়বে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি ভাতা।

 

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৫৫ বার

[hupso]