শিরোনামঃ

» মোংলা বন্দর ও কাস্টমস একত্রিত হয়ে কাজ করলে দুর্নিতিবাজ ও দুষ্ট চক্র দমনসহ সরকারের ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়ন সম্ভব মোংলায় এনবিআর চেয়ারম্যান

প্রকাশিত: ১০. অক্টোবর. ২০২০ | শনিবার

মাসুদ রানা,মোংলা:
বিশ্ব বানিজ্য সংস্থা আর্টিকেল ৭২ বাস্তবায়নে ২০২২সালের ১জানুয়ারী থেকে দেশের সকল কাস্টমস হাউজ ও কাস্টম ষ্টেশন সমূহের শুল্ক, করাদি, ফি,সবধরনের চার্জ পরিশোধের পদ্ধতি, ই-পেমেন্ট বাধ্যতা মূলক করা হবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড কর্তৃক শনিবার দুপুরে মোংলা কাস্টমস হাউজে ব্যাবসায়ীদের নিয়ে কাষ্টমস কর্তৃপক্ষ কাস্টমস ইপেমেন্ট বিষয়ক সচেতনা মূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মোংলা কাস্টমস হাউজের কমিশনার হোসেন আহমদ এর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু হেনা মোঃ রহমাতুল মুনিম, বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য গ্রেড-১, কাষ্টম,স নিরীক্ষা আধুনিকায়ন ও আন্র্Íজাতীক বানিজ্যি,

খন্দকার মুহাম্মাদ আমিনুর রহমান, সদস্য (শুল্ক ও ভ্যাট প্রশাসন) মোঃ সাইফুল ইসলাম, সদস্য মুসক, নিরীক্ষা ও গোয়েন্দা ড. আব্দুল মান্নান শিকদার ও বাগেরহাট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাট্রির সভাপতি শেখ লিয়াকত হোসেন লিটন।

প্রধান অতিথি বলেন, ‘ব্যবসায়ীদের সমস্যা থাকবে সব সেক্টেরেই এই সমস্যা আছে, ভোগান্তির সমস্যা শুধু এনবিআরে নয়-একদিনে এর সমাধান করা সম্ভব নয়।

সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে, কোন কোন ক্ষেত্রে একজনের সমস্যা আবার কোন কোন ক্ষেত্রে একটা গোষ্ঠীর সমস্যা। আর এই সমস্যাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে একাত্রিত ভাবে কাজ করে তা উত্তরন করতে হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবো মোংলা কাস্টম হাউজ আধুনিকায়নের প্রক্রিয়ায় আছে জানিয়ে-এনবিআর চেয়ারম্যান আরো বলেন শুল্ক গোয়েন্দা এবং কাস্টমসের এক সঙ্গে পরীক্ষন হওয়ার প্রয়োজন।

ব্যবসায়ীদের দাবির প্রসঙ্গে বলেন, সকল সমস্যা কাটিয়ে মোংলায় কাস্টমসের কার্যক্রম পুরোদমে বৃদ্ধি পেলে শুল্ক গোয়েন্দা অফিসও মোংলায় স্থান্তর করা হবে।

মোংলা কাস্টস হাউজ মোংলায় স্থান্তর হলেও শুল্ক গোয়েন্দা অফিস এখনও খুলানায় রয়েগেছে, যে কারনে ব্যবসায়ীরা ভোগান্তি থেকে এখনো বের হতে পারছেনা। তবে ভবিষ্যতে কাষ্টমস সংশ্লিষ্ট এসকল সমস্যা আর থাকবেনা।

ব্যাবসায়ীরাও বন্দর থেকে দ্রুত কাজ সম্পন্ন করে তাদের ব্যাবসা বানিজ্য পরিচালনা করতে পারবে। কাষ্টমস ই-পেমেন্ট কার্যক্রম শেষে বন্দরের কন্টেইনার ইয়ার্ড, গাড়ী ইয়ার্ড, কাষ্টমস কাইক পরিক্ষার স্থান ও বানিজ্যিক জাহাজ নঙ্গর করার জেটি এালাকা পরিদর্শন করেন।

পরে বন্দরের সভাকক্ষে বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এ্যাডমিরাল এম শাহজাহান’র সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেস মজুদার, সহকারী কমিশনার ভুমি নয়ন কুমার রাজ বংশীসহ বন্দরের উর্ধতন কর্মকর্তা, সি এন্ডএফ

এসোসিয়েশন, শিপিং এজেন্ট এসোসিয়েশন, বন্দরের ব্যাবসায়ীদের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যাংকের কর্মকর্তা, কাস্টমস কর্মকর্তারা এসময় উপস্থিত ছিলেন ।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৮৯ বার

[hupso]
সর্বশেষ খবর
প্রভাষক আসাদুজ্জামান ফারুকীকলারোয়া, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এবং…