সর্বশেষ খবর :
মুজিববর্ষ

» ইয়াবা কেনার টাকা না দেয়ায় স্ত্রীকে স্বামীর বেধড়ক মারপিট

প্রকাশিত: ০৫. ফেব্রুয়ারি. ২০২০ | বুধবার

মিজানুর রহমান মিনু , কাজিপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: ইয়াবা কেনার টাকা না দেয়ায় স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে অমানষিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

কাজিপুর উপজেলার বেরিপোটল গ্রামের আঃকাদের জিলানির একমাত্র মেয়ে বৃষ্টি খাতুন (২৮)গাজিপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলার বিশ্বাসপুর ষ্টান্ডার্ড গ্রুপের আল্লাহর দান গার্মেন্টসে চাকরি করা অবস্থায় ফরিদপুর জেলার কালকিনি উপজেলার সাহেব রামপুর গ্রামের কাঞ্চন শিকদারের পুত্র আঃ হানিফের (৩২) সাথে ১বছর আগে ভালোবাসা টানে বিবাহ হয়।

স্বামী আঃ হানিফ ইয়াবা খোর তা জানতোনা বৃষ্টি বিয়ের পর থেকেই শুরু হলো অত্তাচার বৃষ্টি ও বুঝতে পারলো স্বামী নেশা করে বিভিন্ন সময় স্ত্রীর কাছে টাকা দাবি করেন. বৃষ্টির আর বুঝতে বাকি নেই স্বামী ইয়াবা কিনবে।

ভালোবাসার বিয়ে বলে বাবাকে তেমন কিছু বলে না এভাবেই বিভিন্ন অত্যাচারের মধ্য দিয়ে কেটে গেল প্রায় ১বছর। বৃষ্টি কিছু দিনের জন্য বাবার বাড়ি কাজিপুরে আসেন ।

এমতাবস্থায় (০৩/০২/২০২০) সোমবার দিন ইয়াবাখোর স্বামী আঃ হানিফ এর কাছে ইয়াবা কেনার টাকা না থাকায় বৃষ্টির ফুপুর বাসায় গিয়ে খারাপ ভাষায় গালিগালাজ করে এবং সাথে লোক নিয়ে বৃষ্টির ফুপুর বাসা থেকে ফ্রিজ সহ বিভিন্ন মালামাল লুট করে ।

এ খবর শুনে বৃষ্টি মঙ্গলবার (৪ ফেব্রুয়ারি)চলেযান স্বামীর বাসা গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈরের হাবিবপুরে।

আহত বৃষ্টি জানান, আমি মঙ্গলবার (৪ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৩ টায় বাসায় যাওয়ার পর থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত তাকে নানা ভাবে নির্যাতন করা হয়। বাসা থেকে ১কিঃমিঃদূরে শাল বাগানে নিয়ে স্বামী সহ অপরিচিত ৪ জন তাকে গাছের ডাল দিয়ে মুখে পিটায়, বুকে লাথি মারে ও ইট দিয়ে হাতে আঘাত করে এবং বিশ হাজার টাকা চায় তার কাছে।

আহত মেয়ের বাবা বলেন, বৃষ্টি কয়েক দিনের জন্য আমার বাড়িতে থাকতো ঘটনার দিন আমার মেয়ে গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলার হাবিবপুর আমতলা ভাড়া বাসাতে ফিরে যায় পরে বিকেলে আমার মোবাইলে কল দিয়ে বিশ হাজার টাকা চায়ে।

হানিফ টাকা না দিলে মেয়েকে মেরে ফেলবে বলে ভয় দেখায়।

এমতাবস্থায় আমি হানিফ কে বিকাশের মাধ্যমে  বিশ হাজার টাকা দিলে হানিফ আমার মেয়েকে ফেলে চলে যায়। পরে আমার বোনের ফোনে যোগাযোগ করে আমার মেয়েকে আমার নিজের এলাকা কাজিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে ডাঃ মেয়ের অবস্থা দেখে ভোর ৫টায় সেখানকার ডাক্তাররা রেফার করে সিরাজগঞ্জের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে।

বর্তমানে বৃষ্টি সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন আছেে।

এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোন মামলা করা  হয়নি।

আগামীকাল মামলা করবে বলে জানান মেয়ের বাবা।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৬৫ বার

[hupso]