মুজিববর্ষ

» সব বয়স্ক ব্যক্তিকে ভাতা দেয়া হবে: সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

প্রকাশিত: ১১. ফেব্রুয়ারি. ২০২০ | মঙ্গলবার

সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় ২০২৫ সালের মধ্যে ৬৫ বছরের পুরুষ ও ৬২ বছরের সব বয়স্ক নারীকে বয়স্ক ভাতা দেয়া হবে। প্রতিবছর শতকরা ১০ভাগ হারে ভাতা ভোগীর সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। বর্তমানে ৪৪ লাখ ব্যক্তিকে বয়স্ক ভাতা দেয়া হচ্ছে।

মঙ্গলবার সরকারি দলের সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবির এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী সংসদে এ তথ্য জানান।

স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংসদের বৈঠকে নুরুজ্জামান আহমেদ সরকারি দলের সদস্য দিদারুল আলমের অপর এক প্রশ্নের জবাবে আরো বলেন, চলতি অর্থ বছরে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী খাতে ৫ হাজার ৬৯৭ কোটি ৬৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

বয়স্ক ভাতা, বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা ভাতা, অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী ভাতা, তৃতীয় লিঙ্গ জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন, বেদে জনগোষ্ঠী, চা শ্রমিকের জীবন মান উন্নয়ন, ক্যান্সার রোগীসহ বিভিন্ন রোগীদের জন্য চিকিৎসা ভাতা প্রদান করার লক্ষ্যে সরকার সারাদেশে ব্যাপক কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

সরকারি দলের সদস্য নূর মোহাম্মদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে নুরুজ্জামান বলেন, বর্তমানে ৪৪টি জেলায় ৬২টি বেসরকারি বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় রয়েছে। এ সব বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন-ভাতা সরকার বহন করছে। এছাড়া দেশের সব উপজেলায় একটি করে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় স্থাপন হবে।

তিনি বলেন, মিরপুর জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন ক্যাম্পাসে একটি সম্পূর্ণ অবৈতনিক স্পেশাল স্কুল ফর চিলড্রেন উইথ অটিজম চালু করা হয়েছে। বর্তমানে ১১টি স্পেশাল স্কুল ফর চিলড্রেন উইথ অটিজম চালু আছে।

এছাড়া দেশব্যাপী শারীরিক, বাক শ্রবণ ও দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দিয়ে চাকরি দেয়ার  মাধ্যমে প্রতিবন্ধীদের পুনর্বাসন করার কাজ চলছে বলে মন্ত্রী সংসদকে জানান।

তিনি বলেন, গত অর্থ বছর অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী ভাতা কার্যক্রমে মাথাপিছু মাসিক ৭৫০ টাকা হারে ১৫ লাখ ৪৫ হাজার জনকে ১ হাজার ৩৯০ কোটি ৫০ লাখ টাকা দেয়া হয়েছে।

প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা উপবৃত্তি কার্যক্রমে ৪টি স্তরে উপকারভোগীর সংখ্যা এক লাখ জন। এই খাতে বরাদ্দের পরিমাণ ৯৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। এসব প্রতিবন্ধী ভাতা সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী দেয়া হয়।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৬ বার

[hupso]