শিরোনাম :

» আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে মহেশখালীর নুরুল ইসলামের জামিন

প্রকাশিত: ১৯. ফেব্রুয়ারি. ২০২০ | বুধবার

একাত্তরের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার মৌলভী নুরুল ইসলামকে জামিন দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

তিনি জামিনদার আপন ভাইয়ের বাড়িতে থাকবেন এবং ধার্য তারিখে ট্রাইব্যুনালে হাজির থাকার শর্তে জামিন দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল বুধবার এক আদেশে নুরুল ইসলামের জামিন মঞ্জুর করে আদেশ দেন। মস্তিস্কে রক্তক্ষরণজনিত (ব্রেইন স্ট্রোক) কারণে পক্ষাঘাতগ্রস্থ (প্যারালাইজড) হয়ে পড়ায় ট্রাইব্যুনাল তার জামিন মঞ্জুর করেন বলে জানান আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুস সাত্তার পালোয়ান।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর রেজিয়া সুলতানা চমন।

এর আগে এই মামলায় আরো দুই আসামি সাবেক সংসদ সদস্য রশিদ মিয়া এবং ওসমান গণিকে বিশেষ শর্তে জামিন দিয়েছিল ট্রাইব্যুনাল। এদের মধ্যে রশিদ মিয়া মারা গেছেন।

মানবতাবিরোধী অপরাধে সম্পৃক্ততার অভিযোগে মৌলভী নুরুল ইসলামকে ২০১৫ সালের ২৪ মে গ্রেপ্তার করা হয়। সেই থেকে তিনি কারাবন্দি। কারাগারে থাকাবস্থায় গতবছর ১৭ এপ্রিল স্ট্রোক করেন। এরপর তিনি প্যারালাইজড হয়ে যান।

এ অবস্থায় জামিনের আবেদন করা হয়। আদালত আসামির ভাই জাকারিয়া এবং আইনজীবীর জিম্মায় জামিন দেন।

জামিনে থাকাবস্থায় আসামি ভাইয়ের জিম্মায় মহেশখালীর বাড়িতে থাকবেন। ধার্য্য তারিখে আদালতে হাজির থাকতে হবে।

মুক্তিযুদ্ধের সময় ৯৪ জনকে হত্যাসহ নারী নির্যাতন এবং লুটপাট ও অগ্নিসংযোগসহ বিভিন্ন অপরাধের অভিযোগের মামলায় নুরুল ইসলাম, বিএনপি দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ রশিদ মিয়াসহ ৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার করা অপর তিন আসামি হলেন-কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি ও এলডিপি নেতা সালামত উল্লাহ খান, বাদশা মিয়া ও ওসমান গণি।

এদের মধ্যে রশিদ মিয়া মারা গেছেন। অপর ১২ আসামি পলাতক। পলাতক আসামিরা হলেন-মৌলভী মোহাম্মাদ জাকারিয়া শিকদার, অলি আহমদ,  জালাল উদ্দিন, মোহাম্মদ সাইফুল ওরফে সাবুল, মমতাজ আহমদ, হাবিবুর রহমান, আমজাদ আলী, মৌলভী রমিজ হাসান, আব্দুল শুক্কুর, জাকারিয়া, মৌলভী জালাল ও আব্দুল আজিজ।

এই মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে। এরইমধ্যে ২২ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৩৩৪ বার

[hupso]